লাভা – রিশপ – লোলেগাঁও | lava-Rishop-lolegaon

লাভা – কালিম্পঙ জেলার অন্যতম মনোরম পর্যটন কেন্দ্র লাভা। সমতল থেকে প্রায় ৭ হাজার ৫০০ ফুট উচ্চতায় অবস্থিত লাভা। কালিম্পঙ শহর থেকে ৩৫ কিলোমিটার দূরে ফার, পাইন গাছে ঘেরা সবুজ আঙিনার মাথায় অজস্র মেঘ-কুয়াশার দলের আনাগােনা এখানে। বিভিন্ন প্রজাতির গাছপালা, বন্য পশু ও পাখির দেখা মেলে এখানে। বিশেষত পক্ষীপ্রেমীদের কাছে লাভা খুবই আকর্ষণীয়। হিমালয়ের দিগন্তবিস্তৃত তুষারঢাকা সাম্রাজ্যের মাঝে এক নয়নাভিরাম শৈল শহরে পায়ে পায়ে দেখে নেওয়া যেতে পারে লাভার বিখ্যাত বৌদ্ধ মনাষ্ট্রি। বৌদ্ধ মনাস্ট্রি থেকে গাড়ি করে নেওড়াভ্যালি ন্যাশনাল পার্কের জিরাে পয়েন্ট, বিয়ং চা-বাগান, ছাঙ্গে জলপ্রপাত, ঝান্ডিদারা ভিউপয়েন্ট দেখা এক অনন্য সাধারণ অভিজ্ঞতা। লাভা থেকে ১০ কিলোমিটার দূরে রেচেলা পাহাড়কে ঘিরে প্রায় এক হাজার ফুট থেকে এগারো হাজার ফুট উচ্চতা পর্যন্ত ৮৮ বর্গ কিলোমিটার এলাকা জুড়ে গড়ে উঠেছে নেওড়া ভ্যালি জাতীয় উদ্দ্যান। ট্রেকিং প্রেমীরা লাভা থেকে ট্রেক শুরু করে মৌচুকি হয়ে সামসিং-সুনতালেখোলায় পৌঁছে যেতে পারেন।

রিশপ – ভ্রমণ পিপাসু মানুষের কাছে উত্তরবঙ্গের হিমালয়ের কোলে অবস্থিত পাহাড়ি শহর গুলির অন্যতম রিশপ। লাভা থেকে ৫ কিলোমিটার দূরে পাইন, রোডোডেনড্রন এবং অর্কিডে ঘেরা রিশপ। সমগ্র উপত্যকা জুড়ে মেঘ-রােদের খেলা এবং কাঞ্চনজঙ্ঘার বিশাল মনোমুগ্ধকর দৃশ্য ও সিকিমের নীল পর্বতশ্রেণি দেখা এক অনন্য সাধারণ অভিজ্ঞতা। রিশপ থেকে জঙ্গলের মধ্য দিয়ে দেড় কিলােমিটার ট্রেক করে পৌঁছে যাওয়া যায় পশ্চিমবঙ্গের দ্বিতীয় উচ্চতম পয়েন্ট টিফিনদারা ভিউপয়েন্ট-এ । এখানকার অদ্ভুত নিস্তব্ধতা, পাহাড় শ্রেণির গভীরতা এবং সূর্যোদয় দেখার দৃশ্য এককথায় অবিস্মরণীয় অভিজ্ঞতা।



লোলেগাঁও
– রিশপ থেকে লাভা হয়ে ২১ কিলোমিটার দূরে সাড়ে ৫ হাজার ফুট উচ্ছতায় অবস্থিত লোলেগাঁও। লেপচা অধ্যুষিত এই ছোট্টো জায়গাটি স্থানীয় মানুষের কাছে ‘কাফের’ নাকে বেশি পরিচিত।এখান থেকে কাঞ্চনজঙ্ঘার অপরূপ সূর্যোদয়ের সৌন্দর্য উপভোগ করা সৌভাগ্যের ব্যাপার। ক্যানোপি ওয়াক লোলেগাঁওয়ের সবচেয়ে জনপ্রিয় আকর্ষণ। 180 মিটার লম্বা ঝুলন্ত একটি সেতুর দিয়ে মধ্য দিয়ে হাঁটার অভিজ্ঞতা ভোলার  নয়।

কীভাবে যাবেন ?

ট্রেনপথে হাওড়া বা শিয়ালদা থেকে নিউ জলপাইগুড়ি। নিউ জলপাইগুড়ি থেকে প্রায় ১০০ কিলোমিটার দূরে লাভা- রিশপে পৌঁছানো যায়। আর রিশপ থেকে লোলেগাঁও ২১ কিলোমিটার। এখানে আসার জন্য গাড়ি ভাড়া করাই ভালাে। অন্যথায় বাস বা শেয়ার জিপে লাভা এসে, সেখান থেকে গাড়ি ভাড়া করে রিশপে পৌছােনাে যায়। শিলিগুড়ি থেকে লাভা ও রিশপ যাওয়া যায় দুটি পথ ধরে। একটি কালিম্পং হয়ে অন্যটি গোরুবাথান হয়ে। শিলিগুড়ি বাস স্ট্যান্ড থেকে বসে করে লাভা যাওয়ার বাসের ভাড়া প্রায় ১২৫ টাকা। তবে বাসের সংখ্যা খুব কম। প্রাইভেট গাড়িতে লাভা-লোলেগাঁও-রিশপ ড্রপিং চার্জ সিজনে কমবেশি ৩,৫০০ টাকা।

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published.