The child’s first educational institution / শিশুর প্রথম শিক্ষা প্রতিষ্ঠান

মা-বাবা এবং পরিবারই শিশুর প্রথম শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। 

শিশুর লালন পালন কেমন হবে বা হওয়া উচিত  তার বেশিরভাগটাই নির্ভর করে তার মা-বাবা বা অভিভাবকের ওপর। অবশ্য এ ক্ষেত্রে  সমাজ, দেশ বা রাষ্ট্রের ভূমিকা ও যথেষ্ট রয়েছে।

লালন পালনের ক্ষেত্রে কেউ হয়তো ৩ বছরের শিশুকে নিজের হাতে খাবার খেতে শেখাতে  চাইবে, কেউ হয়তো ২ বছরে আবার কেউ হয়তো ৪ বছরে। পরিবারভেদে বিষয়টা একেক জায়গায় একেক রকম। সে ভাবে দেখতে গেলে সব বিষয়ই স্থান-কাল-পাত্র ভেদে বিভিন্ন রকম হয়, বিভিন্ন মতের হয় কিন্তু, প্রতিটি জিনিসেরই একটা সার্বজনীন মাপকাঠি থাকে, কমবেশি সেগুলো আমাদের মেনে চলা প্রয়োজন। শিশু লালন পালনের ক্ষেত্রে তেমনি সার্বজনীন কিছু কিছু নির্ধারিত বিষয় শিশুর জন্য ভালো বা মন্দ তা অভিভাবকের সঠিকভাবে ভাবা প্রয়োজন।

বর্তমানে পরিবার বলতে বেশির ভাগ ক্ষেত্রে মা-বাবা আর সন্তান। যৌথ পরিবার প্রায় নেই বললেই চলে। এক্ষেত্রে শিশু অন্যান্য ভাই বোনদের থেকে বা পরিবারের অন্য সকলকে দেখে যে  শিখবে তা হয়ে ওঠে না।

তাই মা-বাবাই যখন শিশুর প্রথম ও প্রধান শিক্ষক তখন প্যারেন্টিং (Parenting) সম্পর্কে সম্পূর্ণ ধারণা থাকাটা বিশেষ প্রয়োজন।

 পাশ্চাত্যের দেশগুলোতে সন্তান আসার আগে মা-বাবার এই ধরনের প্যারেন্টিং কোর্স খুবই জনপ্রিয়। বর্তমানে আমাদের দেশে এই ধরনের কোর্স চালু হয়েছে। 

এসব ক্ষেত্রে শিশুর দৈহিক, মানসিক, সামাজিক এবং বৌদ্ধিক বিকাশ একেবারে শৈশব থেকে সাবালক হওয়া পর্যন্ত কেমন হওয়া উচিত তার একটা ধারণা দেওয়া হয়। কিন্তু তৃতীয় বিশ্বের দেশগুলোতে বেশিরভাগ পরিবারে যেখানে ‘নুন আনতে পান্তা ফুরোয়’ সেখানে এসব কোর্স অলীক কল্পনা মাত্র। তাই মা-বাবাকে তার আশেপাশের ব্যক্তিদের সহায়তা ও সহযোগিতা এবং বিভিন্ন মাধ্যমের সাহায্যে অভিজ্ঞতা লাভ করার মধ্যে দিয়ে শিশুকে সঠিকভাবে গড়ে তোলা প্রয়োজন।

এক্ষেত্রে দু -আড়াই বছর বয়স থেকে প্রাক- প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রাসঙ্গিকতা ও যৌক্তিকতা এক গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। সরকার ও উন্নত পরিকাঠামোযুক্ত বেসরকারি শিশু শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের এদিকে বিশেষ নজর দেওয়া প্রয়োজন। মা-বাবারা এইসব প্রতিষ্ঠান থেকে তাদের শিশুর শিক্ষা ও বেড়ে ওঠা কেমন হওয়া উচিত তার একটা ধারণা পেতে পারে।

__________________________________________________________________________

Parents and family are the child’s first educational institution.

 Much of what a child is or should be brought up depends on his or her parents or guardians.  Of course, the role of society, country or state is enough in this case.

 In the case of upbringing, some may want to teach a 3-year-old child to eat with their own hands, some may be 2 years old and some may be 4 years old.  It varies from place to place in different families.  From that point of view, all things are different in space-time-vessel, there are different opinions, but, every thing has a universal standard, at least we need to abide by them.  In the case of child rearing, there are some universally defined issues that parents need to think about whether it is good or bad for the child.

 At present, in most cases, family means parents and children.  It goes without saying that there is almost no joint family.  In this case, the child does not become what he learns from seeing other siblings or everyone else in the family.

 Therefore, when the parents are the first and the main teacher of the child, it is especially important to have a complete idea about parenting.

 This type of parenting course for parents before the arrival of the child is very popular in western countries.  At present such courses have been introduced in our country.

 These cases give an idea of ​​what a child’s physical, mental, social and intellectual development should look like from infancy to adulthood.  But in third world countries, where most families have a ‘punta furoy to bring salt’, these courses are just a fantasy.  So the parents need to develop the child properly with the help and cooperation of the people around him and gain experience through various means.

 In this case, the relevance and rationality of pre-primary school from the age of two and a half years is an important issue.  Special attention needs to be paid to the government and private children’s educational institutions with improved infrastructure.  Parents can get an idea of ​​what their child’s education and upbringing should look like from these institutions.

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published.